MovieHollywood

Gone Girl সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার

Gone Girl (2014)
Gone Girl posterRating: 8.1/10 (837,814 votes)
Director: David Fincher
Writer: Gillian Flynn (screenplay), Gillian Flynn (novel)
Stars: Ben Affleck, Rosamund Pike, Neil Patrick Harris, Tyler Perry
Runtime: 149 min
Rated: R
Genre: Drama, Mystery, Thriller
Released: 03 Oct 2014
Plot: With his wife's disappearance having become the focus of an intense media circus, a man sees the spotlight turned on him when it's suspected that he may not be innocent.

Gone Girl সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার এই মুভিটা শুরু হয় খুবই সাদামাটা ভাবে। মুভির শুরু দেখে বোঝাই যায় না এটা একটা থ্রিলার মুভি। হাসবেন্ড বাসায় এসে দেখে তার ওয়াইফ বাসায় নেই। পুরো বাসা ঠিক আছে। তবে ডাইনিংয়ের কাচের টেবিলটা ভাঙা। সে পুলিশের কাছে কেস করে কিডন্যাপিং বলে। পুলিশ এসে তদন্ত করে জানতে পারে ক্রাইমসিন পুরোটাই সাজানো।

এমন অবস্থায় স্বাভাবিকভাবেই তার স্ত্রীর এমন রহস্যজনক গুম এবং সম্ভাব্য হত্যার অন্যতম একজন সাসপেক্ট হিসেবে তাকেও বিবেচনা করা হয় ! এবং এটা জানার পর Nick নিজেও প্রচন্ড অবাক হয় এবং গোয়েন্দা-মিডিয়া-পু­লিশ কে এড়িয়ে চলতে রীতিমত বাধ্য হয় ।

এভাবেই শুরু হয় কাহিনীর মূল আয়োজন । বেশ কিছুক্ষন পর থেকেই কাহিনী নিতে থাকে একের পর এক মোড় ! কি ঘটে আসলে Nick ও তার স্ত্রী Amy’র সাথে ? Amy কি সত্যিই কিডন্যাপড হয় ? কিংবা খুন ? নাকি স্বেচ্ছায় পলায়ন ? খুন হলে সেটার জন্য দায়ী কে, Nick ? নাকি অন্য কেউ ? আসলে ঘটেই বা কি ?

আপনি যদি David Fincher -এর মেকিং সম্পর্কে অভ্যস্ত না থাকেন, তাহলে চলচ্চিত্রটা আপনার কাছে বেশ লম্বা এবং অনেকটা বোরিং-ও লাগতে পারে… স্বাভাবিক ! কারন, স্টোরি ডেভেলপিং যথেষ্ট স্লো ! এধরনের চলচ্চিত্র এবং বিশেষত David Fincher -এর আগের কিছু চলচ্চিত্র দেখা থাকলে আপনার এই অবাঞ্ছিত ধারনাটা কেটে উঠতে পারবেন ।

Gillian Flynn এরই লেখা ২০১২ সালে প্রকাশিত একই নাম ‘Gone Girl’ নামক থ্রিলার উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হয়েছে চলচ্চিত্রটি । এধরনের নির্মানের একটা ব্যাপার থাকে- সেটা হলো, উপন্যাস থেকে নির্মিত চলচ্চিত্রের কাহিনীতে তেমন বড় ধরনের পরিবর্তন করার সুযোগ হয়তো থাকে না ! ফলে, যাদের উপন্যাসটা পড়া থাকে… তাদের আর কষ্ট করে কাহিনীর ভেতর-বাহির বোঝার প্রয়োজন পড়ে না ! কাহিনীর বেশ বড়-সড় একটা তাদের মোটামুটি জানাই থাকে ! কিন্তু, সাহিত্য আর চলচ্চিত্র তো আর এক জিনিস না ! দুইটার দুই ধরনের জগৎ । যদিও একটা বিশেষ সেন্সে একে অপরের সাথে এরা চরমভাবে রিলেটেড । তাই, যতই কাহিনী জানা থাকুক… পুরো কাজটা বেশ উপভোগ্য মনে হওয়াই স্বাভাবিক !

সিনেমাটোগ্রাফি, কস্টিউম । এডিটিংও বেশ ভালো ছিলো…
ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক বেশ ভালো ছিলো ! অভিনয়েও সবাই তাদের সেরাটাই দিয়েছে। সব মিলিয়ে বেশ উপভোগ্য একটা চলচ্চিত্র এটা । আশা করা যায় সবারই ভালো লাগবে

অন্যদিকে ওয়াইফ কিন্তু কিডন্যাপ কিংবা মার্ডার কিছুই হয় নি। সে নিজেই পুরো কাহিনি সাজিয়ে চলে যায় তার হাসবেন্ডকে শাস্তি দেওয়ার জন্য। তার অপরাধ সে তার কলেজ লাইফের গার্লফ্রেণ্ডদের সাথে এখনও রাত কাটায়। অথচ তাদের বিয়ে হয়েছিল কিন্তু প্রেম করেই। তাহলে এখন কি হবে? হাসবেন্ড কি বিনা অপরাধেই ফাঁসিতে ঝুলবে? নাকি ওয়াইফ এসে তাকে মুক্ত করবে? কিন্তু ওদিকে ওয়াইফ তো ফেঁসে গিয়েছে তার এক বন্দুর বাসায়!

পুরো মুভিতে অসংখ্য সেক্স সিন সরাসরি দেখানো হয়েছে। আবার রক্তের বাড়াবাড়িও ছিল। যাদের এসব বিষয়ে সমস্যা তারা এড়িয়ে যেতে পারেন।

Show More

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button